কিছুদিন আগে মুসলিম বলিউড তারকা ইরফান খান মারা গেলেন আবার দেশে ৩ দিনে ৩ জন মুসলিম আওয়ামীলীগ নেতা মারা গেলেন । জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে দেশের সবাই যে যার অবস্থান থেকে তাদের আত্নার শান্তি কামনা করেছে । কোন হিন্দু,বৌদ্ধ বা খ্রিস্টানকে তো দেখলাম না এটা বলতে যে,বিধর্মী মারা গেছে শান্তি কামনা করা যাবে না, হোক না সে নেতা বা বলিউড ...

হোসেন মুহাম্মদ এরশাদের  দুইটা জিনিস আওয়ালীগ আর বিএনপি ক্ষমতায় গেলেই সেটা আকঁড়ে ধরে মনে প্রাণে কাজে লাগায় । প্রথমটা হলো রাষ্ট্রের একটাই ধর্ম থাকবে সেটা হলো ইসলাম আর দ্বিতীয়টা হলো রাষ্ট্রপতি কর্তৃক কোন আসামীর ক্ষমা মঞ্জুর । ১৯৮৭ সালে একজন আসামীকে ক্ষমা করার মাধ্যমে  হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ রাষ্ট্রপতির ক্ষমা সংক্রান্ত সাংবিধানিক ক্ষমতাটি সর্বপ্রথম প্রয়োগ করেন । সংসদ থেকে পাওয়া তথ্যমতে ...

যারা ধর্ম বিদ্বেষী তারা শুধুমাত্র ইসলাম ধর্ম বিদ্বেষী অন্য ধর্ম নিয়ে তাদের কোন কথা নাই । তাহলে, অন্য ধর্মের আচরণের সাথে এই ধর্মের আচরণের পার্থক্যটা একটু মিলায় নেন সবাই । তারা, ভাস্কর্য আর মূর্তির পার্থক্যটা না বুঝে ২০১৩ সালে শাহজালাল ভার্সিটিতে ভাস্কর্য স্থাপনে বাধা দিয়েছিলো । শুধুমাত্র হিন্দু সম্প্রদায়ের একজন কবি জাতীয় সংগীত রচনা করায় এরা জাতীয় সংগীত পরিবর্তন করার ...

এটা ২০০১ সালের ঘটনা ।  ১৪ বছরের নবম শ্রেণীতে পড়া পূর্ণিমাকে ধর্ষণ করতে এসেছিলো ১০-১২ জনের একটি দল। এই টুকু মেয়েটা এতজনের অত্যাচার সহ্য করতে পারবে না দেখে পূর্ণিমার মা কান্না করতে করতে বলেছিলেন— ” বাবারা আমার মেয়েটা অনেক ছোট, সে মরে যাবে, তোমরা একজন একজন করে আসো “ আর এখন ২০২১ সাল । কোন পরিবর্তন কি পাচ্ছেন ?   হ্যা, ...

শ্রোতারা শীতের মাঝে নিচে বসে থাকে আর উপরে স্টেজে নরম চেয়ারের উপর বসে থাকেন হুজুর । কেউ কেউ গরম চা নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে আবার কেউ কেউ হাতপাখা দিয়ে বাতাস করে । ঠিক এই রকম একটা সিচুয়েশনে ওয়াজ মাহফিলে সহজ সরল মানুষের সামনে বক্তব্য দিয়ে যুক্তিবাদী খেতাব পাওয়া লোকরা কোন টকশোতে বা লাইভ শোতে একটা যৌক্তিক কথা বলার ক্ষমতা রাখেন না ...

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে বেসরকারি চিকিৎসা ব্যবস্থার বেহাল অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ-অভিযোগ অব্যাহত রয়েছে। অনেক রোগী অভিযোগ করেছেন, জ্বর, সর্দি-কাশির মতো লক্ষণ থাকলেই এসব হাসপাতালে হাসপাতালে ঘুরেও অন্য রোগের চিকিৎসা পাওয়া যাচ্ছে না। অনেক বেসরকারি হাসপাতাল -ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা বন্ধ করেও দেওয়া হয়েছে। এমন প্রেক্ষাপটে সরকারের পক্ষ থেকে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে কোনো বেসরকারি হাসপাতাল বা ক্লিনিক চিকিৎসা না দিলে লাইসেন্স বাতিলসহ ...

ক্ষমতার (শাসক, অভিভাবক, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ প্রভৃতির) সমালোচনা করার অধিকার হল বাকস্বাধীনতার সবচেয়ে দামি অংশ। এই মত প্রকাশের অধিকারই হচ্ছে গণতন্ত্রের সুস্থতার মাপকাঠি। গণতন্ত্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ শর্ত হল শাসকের সমালোচনা করার স্বাধীনতা। কিন্ত সরকার সর্বদা এই ধরনের মত প্রকাশ করা কে দাঙ্গায় উস্কানি দেওয়া হয়েছে বলে ঘটনা অন্যদিকে প্রবাহিত করার চেষ্টা করে। তবে কেউ যদি সোশাল মিডিয়ায় খুন-ধর্ষণের হুমকি দিয়ে থাকে ...

দেশ ও দেশের মানুষ এক চরম সংকটময় মূহুর্তের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। চাইলেও এর থেকে পরিত্রান মিলছে না। বৈশ্বিক মহামারিতে রূপ নেওয়া করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশ এখন কার্যত অচল। সেই সঙ্গে কর্মহীন হয়ে পড়েছে দিনমজুরসহ দেশের সাধারণ মানুষ। একদিন কাজ না করলে এদের ঘরে আগুন জ্বলে না, না খেয়েই থাকতে হয় পরিবার নিয়ে। সরকারিভাবে বা বেসরকারিভাবে সহায়তা প্রদান করছেন অনেকেই। চাহিদার তুলনায় ...

বর্তমান সময়ে ভীষণ রকমের অস্থিরতা বিরাজমান পুরো পৃথিবী জুড়ে। আমাদের দেশেও ক্রমাগত উগ্রতা ও অসহিষ্ণুতা ছড়িয়ে পড়ছে। এই উগ্রতা এবং অসহিষ্ণুতা মোকাবিলায় মানুষকেই এগিয়ে আসতে হবে। মানুষের মধ্যে মানবিক মূল্যবোধ জাগিয়ে তুলতে হবে। পরস্পরের প্রতি সহনশীলতা ক্রমশ কমে আসছে। কিন্ত এই উগ্রতা, অসহনশীলতা, সন্ত্রাসবাদ জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ। মানুষের বাকস্বাধীনতা যেমন প্রয়োজন তেমনই সংবাদপত্রের স্বাধীনতাও ...

বিগত এক দশকের আওয়ামীলীগের শাসন আমলে দেশে তাদের একচ্ছত্র আধিপত্য দেখা গিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণের কথা বলেছেন। কিন্তু একইসঙ্গে দেশজুড়ে কার্যত আওয়ামী লীগের স্বৈরাচার কায়েম করা হয়েছে। বিরোধীদের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নেই। কেউ সরকারের সমালোচনা করলেই জামায়াত শিবিরের তকমা লাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যেই প্রহসনের নির্বাচনের মাধ্যমে তারা ক্ষমতায় এসেছে তাতে করে তারা স্বৈরাচারের ধারাবাহিকতাই রক্ষা করেছে। সর্বোপরি দেশের ...