হারামখোর মূর্খ-অশিক্ষিত চাটাশিল্পীরা

এই সেই ডকুমেন্টারী। এটি নিয়েই প্রোপাগান্ডা ছড়ানো হচ্ছে গত কয়েকদিন ধরে। নাম The Birth Pangs of a Nation। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে যেটি বানিয়েছেন বিশ্বখ্যাত আলোকচিত্রী শহিদুল আলম।

চাটা কর্ণার থেকে বলা হচ্ছে যে এই ডকুতে নাকি জিয়াউর রহমানের ভয়েস ডিস্টর্ট করা হয়েছে এবং সেখানে জিয়াউর রহমানকে স্বাধীনতার ঘোষক বানিয়ে দেয়া হয়েছে।

এবার আপনার পালা। আপনার সিদ্ধান্ত নেবার পালা। আপনি একটু এই ২৩ মিনিট ৪৯ সেকেন্ডের ডকুটা দেখুন তো প্লিজ। দেখুন তো আপনারও তাই মনে হয় কিনা। আমি খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখলাম। বুঝলাম, জানলাম। একটিবারও অশ্রু আর বিষাদ ছাড়া মাথায় আর কিছুই আসেনি।

এই হারামখোর মূর্খ-অশিক্ষিত চাটাশিল্পীরা এত ভয়াবহ…এত ভয়াবহ এবং এতই ভয়াবহ যে একটা অসাধারণ মুক্তিযুদ্ধের ডকুকে বানিয়ে দিয়েছে স্বাধীনতার বিরুদ্ধ একটি কাজ। এদের মাথায় শুধু ঘোরে কিভাবে ক্যাচাল লাগিয়ে, গ্যাঞ্জাম লাগিয়ে, প্যাঁচ লাগিয়ে, অসভ্যতা করে, ইতরামী করে, বদমাইশী করে ভালো সব কিছু নিঃশেষ করে দেয়া যায়। এদের মাথায় শুধু ঘোরে দালালী আর দালালী।

এই চাটা শিল্পীরা এক কথায় ভয়ংকর। এরা ভয়ংকরের সবচাইতে খারাপ রূপের থেকেও ভয়াবহ। এরা বাংলাদেশের ট্রেডমার্কওয়ালা শত্রু। এরা দোজখে গেলেও সেই দোজখ আতংকে অস্থির হয়ে উঠবে।

http://www.youtube.com/watch?v=3ulWIW0H0K8